স্বাস্থ্যকে ভালো রাখা এবং মোটা হওয়ার কৌশল জেনে নিন

বর্তমানে অনেককে দেখা যায় পরিমাণ খায়, তার পরেও কিন্তু তাদের স্বাস্থ্য সঠিক ভাবে বেড়ে উঠছে না বা অনেকে বলে আমার স্বাস্থ্য ভালো হচ্ছে না। বিশেষ করে বড়দের ক্ষেত্রে এই কমপ্লেন টা অনেক বেশি পুরুষের ক্ষেত্রে। এটা কমন কিছু কারণ হচ্ছে যে আপনার প্রথমত কিছু প্যারামিটার লক্ষ্য করতে হবে। যে আপনার এই প্যারামিটার গুলো ঠিক আছে কিনা তা আগে সঠিকভাবে যাচাই বাছাই করুন। তার মধ্যে সর্বপ্রথম যে জিনিসটা লক্ষ্য করবেন সেটা হচ্ছে যে আপনার শারীরিক কোনো অসুবিধা আছে কিনা। এটা আইডেন্টিফাই করা জরুরি।  হরমোনাল ইমব্যালেন্স আছে কিনা, আপনি খাবার ঠিকমতো হজম করতে পারছেন কিনা, বিপাকক্রিয়া কিংবা মেটাবলিজম ডেট বলি সেটা ঠিক আছে কিনা, কিংবা আপনার দৈনন্দিন জীবনযাত্রা যেমন হেলথি, লাইফস্টাইল, আপনি একটিভ আছেন কিনা, আপনি কোন রকম চিন্তা করছেন কিনা। পরিমিত পানি খাচ্ছেন কিনা এগুলা।

স্বাস্থ্যকে ভালো রাখা এবং মোটা হওয়ার কৌশল জেনে নিন

আপনাকে অবশ্যই  নিজের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। কারণ এই বিষয়গুলোর সাথে কিন্তু আপনার স্বাস্থ্যটা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এবার আসি যদি এই বিষয়গুলো আপনার ঠিক থাকে তাহলে আপনি কি কি খাবার খেতে পারেন। যেটা আপনার ওজন বাড়ানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সেটার প্রথমেই যদি আমি চিন্তা করি সেটা হচ্ছে যে দুধ আর কলা যদি আমরা আলাদা খায় তার যে পুষ্টিগুণ সেটা যদি আমি দুধ কলা দিয়ে একসাথে করে একটা মিল্কশেক বানিয়ে খায় সেটা কিন্তু নিউট্রিয়েন্ট একটা ফুটো হয়ে যায় এবং এটা আমার ওজন বাড়াতে কিন্তু অনেকটাই হেল্প করবে। এবার আসি খেজুর দৈনিক চার থেকে ছয় পিস খেজুর যদি আমরা খাই প্রচুর পরিমাণে আয়রন পাব এটাও কিন্তু আমার ওজন বাড়াতে হেল্প করবে। আর যদি আলুভর্তা চিন্তা করি তাহলে একটু ঘি দিয়ে ভেজে নিয়ে আলু ভর্তা করে খায় সেটা আপনার ওজন বাড়াতে হেল্প করবে। পাশাপাশি আপনি রুটি কিংবা পরোটা সকালে খেয়ে থাকেন তাহলে তার সাথে একটু ঘি দিয়ে ভেজে নিবেন। সেটা আপনার জন্য খুব ভালো কাজ করবে।

অথবা ঘি দিয়ে আপনি সকালের নাস্তাটা সেরে ফেলতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনার শরীর অনেক অংশে ওজন বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি আপনার শরীরের নিউটেশন রিকোয়ারমেন্ট সেগুলো ফিলাপ করবে। ঘুমের আগে এক গ্লাস দুধ খেতে পারেন। কিংবা সাবুর পায়েস, ডিমের পুডিং এই খাবারগুলো আপনি খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। আপনি আরেকটা জিনিস মেন্টেন করতে পারেন সেটা হচ্ছে যে আপনি রেগুলার ফিজিক্যাল অ্যাকটিভিটি করছেন কিনা সেদিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে। আপনি খাবার খাচ্ছেন কিন্তু আপনার ফিজিক্যাল অ্যাকটিভিটি নাই, তাহলে কিন্তু হবেনা। আপনি খাবার খাচ্ছেন সেটা হজম করার জন্য আপনাকে অ্যাক্টিভিটি রান করতে হবে। রেগুলার 30 থেকে 40 মিনিট অবশ্যই আপনাকে এক্সেসাইজ করতে হবে। পাশাপাশি আপনি রাত না জেগে যদি আপনি সাত থেকে আট ঘণ্টা দৈনিক ঘুমান তাহলে আশা করা যায় আপনার ওজন বাড়বে। আর তারপরেও যদি আপনাদের মনে হয় যে সকল পরামর্শ মাধ্যমে আপনার ওজন ফিলাপ হচ্ছে না। তাহলে আপনার কাছাকাছি নিকটবর্তী যেসব অভিজ্ঞ পুষ্টিবিদের আছেন। তাদের পরামর্শ নেন আশা করি আপনি ভালো থাকবেন।


শেয়ার করুন