চারটি উপায়ের মাধ্যমে গুগল এডসেন্স থেকে অর্থ উপার্জন করুন

আপনি জানেন কি গুগল থেকে কি কিভাবে অর্থ উপার্জন করা যেতে পারে? যদি না জেনে থাকেন তাহলে আজকে আমি আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে গুগলের মাধ্যমে অর্থ আয় বা রোজগার করা সম্ভব। আজকে আমি আপনাদেরকে জানাবো গুগলের মাধ্যমে চারটি পন্থার মাধ্যমে আপনি অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। যে চারটি উপায়ের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করা যায় তা হল,

  1. ইউটিউব এর মাধ্যমে
  2. ব্লগ বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে
  3. অ্যাপস এর মাধ্যমে
  4. সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে
চারটি উপায়ের মাধ্যমে  গুগল এডসেন্স থেকে অর্থ উপার্জন
ইউটিউব এর মাধ্যমে:- ইউটিউব একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট।  ইউটিউব এর সঙ্গে পরিচিত নেই এমন ব্যক্তি অনলাইনে পাওয়া কমে যাবে। আমরা অনেকেই ইউটিউবে ভিডিও, গান, মুভি ইত্যাদি দেখে থাকি।  কখনো কি এরকম আপনার সঙ্গে ঘটেছে যে ভিডিও দেখার সঙ্গে সঙ্গে কোনো ধরনের বিজ্ঞাপন আপনাকে দেখাচ্ছে? যদি এরকম দেখে থাকেন তাহলে ভেবে নিবেন এই ব্লগের মাধ্যমে আপনাকে এড দেখিয়েছে অর্থ উপার্জন করে নিচ্ছে।  কত পরিমান ভিজিটর তাদের বিজ্ঞাপন দেখবে তার পরিপ্রেক্ষিতে গুগল তাদের আর্নিং-এর কিছু রেভিনিউ দিয়ে থাকে।  

অনেকে হয়তো ভাবছেন কিভাবে ইউটিউব এর মাধ্যমে আর্নিং করা যায়? ইউটিউবে আর্নিং করা অনেক সহজ।  এর জন্য ইউটিউবে একটি একাউন্ট থাকতে হবে এবং 10 হাজার সাবস্ক্রাইব 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম থাকতে হবে।  আপনার ইউটিউব চ্যানেলের যত পরিমাণ ট্রাফিক আসবে ততই আপনার ইনকাম বাড়তে থাকবে।  আপনি যেকোনো একটি ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে ইউটিউব এর মাধ্যমে অধিক পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।  আপনাকে ব্যাংকের মাধ্যমে প্রেমেন্ট দিয়ে থাকবে।  100 ডলার উপার্জন করলেই আপনি সেটি ব্যাংকের উঠিয়ে নিতে পারবেন। কিভাবে ইউটিউব একাউন্ট করবেন তার তথ্য এখানে পাবেন। 

ব্লগ বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে:- ওয়েবসাইট সকলের একটি পরিচিত প্ল্যাটফর্ম। এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গুগল আপনাকে এডসেন্স দিয়ে থাকে আর সেই এডসেন্স দিয়ে আপনি আর্নিং করতে পারেন আনলিমিটেড। এডসেন্সের মাধ্যমে আর্নিং করা অনেকটাই সহজ উপায়। এর জন্য অবশ্যই আপনাকে ফ্রী ব্লগার অথবা ডোমেইন এর মাধ্যমে অ্যাপ্রভাল নিতে হবে। ব্লগে অ্যাপ্রুভ নেওয়ার পর আপনি দেখতে পাবেন ওয়েবসাইট এর ভিতরে এডসেন্সের অ্যাড যুক্ত করার মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটে অ্যাড দেখাবে। এর জন্য অবশ্যই আপনাকে ভালো মানের কপিরাইটমুক্ত আর্টিকেল ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত লিখতে হবে। আর্টিকেল সাধারণত 300 ওয়ার্ড এর উপরে হলে এডসেন্স পাওয়া অনেকটা সহজ হয়। ব্লগার অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য অনেক কিছু নিয়ম-কানুন অবলম্বন করতে হয়। ব্লগার অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য অবশ্যই থিম টেমপ্লেটসঠিকভাবে সজ্জিতকরন করতে হবে। ট্রাফিক বাড়াতে হবে এবং ভালো মানের আর্টিকেল ওয়েবসাইটে প্রদান করতে হবে।  অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য,  700 পোষ্টের উপরে হলেই উপযুক্ত হয়ে যাবেন অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য। যত পরিমাণের ট্রাফিক বাড়বে এখানে ততই আপনার বিজ্ঞপ্তিগুলি সকলে দেখতে পারবে এর ফলে গুগল আপনাকে অর্থ প্রদান করে থাকবে। কিভাবে ফ্রিতে ব্লক করা যায় এর জন্য আমাদের এই লিংকে দেখতে পারেন।

অ্যাপস এর মাধ্যমে:- মোবাইলে আমরা সাধারণত সকলে অ্যাপস ব্যবহার করে থাকি। গুগল প্লে স্টোরে গেলে আমরা অসংখ্য অ্যাপস দেখতে পাই এর মধ্যে অধিকাংশ অ্যাপসগুলি গুগল এডসেন্স যুক্ত করা থাকে। আমরা অনেকেই দেখে থাকি, যখন কোন অ্যাপস ওপেন করি তখন আমাদের সামনে এড শো করে থাকে। এই অ্যাডগুলো গুগলের। দেখানোর মাধ্যমে গুগোল আপনার থেকে অর্থ উপার্জন করে নেয় এবং যে অ্যাপসটি তৈরি করেছে তাকে কিছু অর্থ প্রদান করে থাকে। অ্যাপস অনেক ধরনের হয়ে থাকে তার মধ্যে আমরা দুইটা অ্যাপস বেশিভাগই ব্যবহার করে থাকি। তার মধ্যে অ্যান্ড্রয়েড এবং অ্যাপেল ওএস। এসকল অ্যাপ গুলির মধ্যে আমরা গুগলের অ্যাড দেখতে পাই। তবে এটি নিয়ে অর্থ উপার্জন করা অনেকটাই কঠিন কারণ এর জন্য আপনাকে অবশ্যই ডেভলপার হতে হবে। আপনি যদি অ্যাপস ডেভেলপার হয়ে থাকেন তাহলে ক্যাবলের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। অ্যাপস গুলির মধ্যে গুগল এডসেন্স এর কোড যুক্ত করে আপনি প্রতিনিয়ত অর্থ উপার্জন করে নিতে পারেন গুগলের থেকে। গুগোল অ্যাপস এর মাধ্যমে কিভাবে অর্থ উপার্জন করা যায় তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে দেখুন

সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে:- আপনি জানেন কি গুগলে সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব হয়? আমরা গুগলে সার্চ দিয়ে থাকি এর মধ্যে দেখে থাকি অনেকেই স্পন্সার করছে অর্থাৎ সার্চ দিলে আমরা দেখতে পাই প্রথম অংশে কন্টেনড রিলেটেড ওয়েবসাইটের এড দেখাচ্ছে।  এই অ্যাডগুলো মাধ্যমে গুগল অর্থ উপার্জন করে এবং আপনি অর্থোপার্জন করে নিতে পারেন।  সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ব্লগের সার্চ বার থাকতে হবে এবং সেখানে গুগলের সার্চ ইঞ্জিন থেকে কোড বের করে ওয়েবসাইটে যুক্ত করার মাধ্যমে আপনি প্রতিনিয়ত অর্থোপার্জন করে নিতে পারেন।  তবে আরনিং করার ক্ষেত্রে তুলনামূলকভাবে এটি অনেকটা অকার্যকর বলে বিবেচনা করা হয়।  এখান থেকে অধিক পরিমানে আয় করা সম্ভব হলে অনেকে মন্তব্য করে থাকেন। 

বর্তমানে গুগল থেকে আয় করে স্বাবলম্বী হয়েছে।  ইউটিউব এবং ব্লগের মাধ্যমে অনেকেই গুগল থেকে অর্থ উপার্জন করে থাকে।  আপনি যদি ভাল মানের কনটেন্ট রাইটার হয়ে থাকেন তাহলে আমি আপনাকে উপদেশ দিব অবশ্যই আপনি ব্লগ নিয়ে গুগল থেকে ভালো আর্নিং করতে পারেন অথবা ইউটিউব নিয়ে ভালো আর্নিং করতে পারবেন।  বাংলাদেশ বেশিরভাগই ইউটিউবার হয়েছে।  তারা অধিক পরিমাণে অর্থ উপার্জন করছে শুধুমাত্র ইউটিউব এ গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে।  আপনি চাইলে অর্থ উপার্জনের মাধ্যম হিসেবে ইউটিউব বেছে নিতে পারেন এই পন্থাটি অনেকটাই সহজ কারণ শুধুমাত্র ভিডিও আপলোড এর মাধ্যমেই অনেক ইনকাম করা সম্ভব।  সর্বশেষে বলব চারটি উপায়ের মাধ্যমে আপনি যেকোন একটি সিলেক্ট করে নিয়ে গুগল থেকে প্রতিনিয়ত ইনকাম করুন। 


শেয়ার করুন