ত্বকের উজ্জলতা ও গ্লো বাড়াতে কি ধরনের খাবার খাবেন?

আজকে আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করব ত্বক সুন্দর রাখতে চাইলে কিংবা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে চাইলে কোন ধরনের খাবার খাবেন? আসলে আমরা সবাই কিন্তু চাই একটু সুন্দর থাকতে।আর সুন্দর থাকতে গেলে আমরা যদি রূপচর্চা করেও থাকি তার চেয়ে জরুরী হল ভেতর থেকে আমাদের ত্বক সুন্দর করা বা ত্বকের লাবণ্য বাড়ানো। আপনার ত্বকের যখন লাবণ্য বেড়ে যাবে তখনই কিন্তু দেখা যায় আপনাকে দেখতে অনেক সুন্দর লাগবে। আপনি খুব সহজেই কিন্তু ত্বকের যত্ন নিতে পারেন।  ত্বক ধরে রাখা মানেই কিন্তু বয়স ধরে রাখা। আর ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে কোন ধরনের খাবারগুলো খাবেন  সে সম্পর্কে আমাদেরকে ভালোভাবে জানতে হবে।শুরুতে আমি বলি আপনাকে কিছু খাবার নিয়মিত খাওয়ার পরামর্শ দিব। খাবার তালিকায় অনেক কিছুই কিন্তু ডিপেন্ড করে থাকে। যেগুলো আপনার সহজেই স্কিন সুন্দর রাখতে পারেন। প্রথমে যে খাবারের কথা বলব সেটা হলো এই সিজনে খুবই পাওয়া যায় সেটা হল গাজর। গাজন কিন্তু প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন আছে।এতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন সি এবং তার পাশাপাশি প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। যেটা খুব সহজে ভেতর থেকে সৌন্দর্য বাড়াতে সাহায্য করে।

ত্বকের উজ্জলতা ও গ্লো বাড়াতে কি ধরনের খাবার খাবেন

আপনি প্রতিদিন সালাত হিসেবে গাজর খেতে পারেন। সবচেয়ে ভালো হয় যদি সকালের নাস্তায় আপনি একটা গাজরের জুস করে খেয়ে ফেলেন তাহলে কিন্তু দেখা যাবে স্কিন টা অনেক সুন্দর থাকবেন। এরপর যে খাবারের কথা বলব তা হল টমেটো। টমেটোতে কিন্তু প্রচুর ভিটামিন সি থাকে এবং আমরা জানি ভিটামিন-সি কিন্তু আমাদের স্কিনের কোলাজেন তৈরি করতে সাহায্য করে। কোলাজেনের কারণে আমরা কিন্তু বয়স টাকে খুব সুন্দর ভাবে ধরে রাখতে পারি।টমেটোতে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও লাইকোপেন রয়েছে সেটা কিন্তু আমাদের স্কিনের জন্য অনেক উপকারী। তাই আমাদের উচিত রেগুলার রুটিন টমেটো এবং ভিটামিন সি জাতীয় খাবার গুলো তালিকাভুক্ত করা। অনেক বেশি আপনি চেষ্টা করুন প্রতিদিন দুপুর বেলা, রাতের বেলা সালাত হিসেবে টমেটো খাওয়ার জন্য। এরপর সকালে কিংবা বিকেলের আমরা কিন্তু গ্রিন টি রাখতে পারি। এটি কিন্তু অনেকেই পছন্দ করে থাকে।  এই গ্রিন টিতে কিন্তু প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। আপনি চাইলে প্রতিদিন একটি পথের ভিতরে গ্রিন টি রেখে দিতে পারেন। যেটা আপনার ত্বককে সুন্দর এবং মসৃণ রাখতে সহযোগিতা করবে।

এছাড়াও আমরা খাবার তালিকায় রাখতে পারি 2 চা চামচ লেবুর রস কিংবা আদার রস। এছাড়াও খাবার তালিকায় যোগ করতে পারেন সবুজ শাকসবজি। পালং শাকের কথা না বললেই নয়। কেননা পালংশাকে কিন্তু প্রচুর ভিটামিন এবং মিনারেলস রয়েছে। এটি কিন্তু স্কিন সুন্দরের জন্য খুব উপকারী  খাবার হিসেবে বিবেচনা করতে পারেন। আরেকটা যে খাদ্য উপাদানের কথা বলব সেটা কিন্তু আমাদের স্কিনের জন্য অনেক উপকারী এবং স্কিনের বাড়াতে সাহায্য করে যার মধ্যে হলো অনেক উপকারী একটা খাবার। আপনি কিন্তু চাইলে রাতের বেলা ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস দুধ খেয়ে নিতে পারেন।সেটা কিন্তু আপনার ত্বক সুন্দর রাখার জন্য অনেক ভালো কাজ করবে। এছাড়াও কিন্তু কাঁচা হলুদ ফুটিয়ে নিয়ে তাতে 200 থেকে 300  গ্রাম পরিমাণ জাফরান যোগ করে খেতে পারেন। এটা ভেতর থেকে আপনার স্কিন তাকে সুন্দর করবে এবং স্কিন টাইট করে। আমাদের অনেকের স্ক্রিনে দেখা যায় অনেক কালো ছোপ ছোপ দাগ থাকে। যেটা কিন্তু এই কাঁচা হলুদ দুধের মাধ্যমে আমরা সহজে দূর করতে পারে।

এছাড়াও কিন্ত অনেকসময় দেখা যায় সারাদিন আমরা অনেক কাজের প্রেসারে থাকে স্কিনের উপর একটা চাপ পড়ে। সেটাও কিন্তু এই কাঁচা হলুদ দূর করতে পারে। এরমধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। আপনি কিন্তু প্রতিদিনের খাবার তালিকায় লেবু রাখতে পারেন। খাবারের সাথে সালাত হিসেবে রাখতে পারেন অথবা কিন্তু লেবুর রস কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন। এতেও কিন্তু আপনার স্ক্রিনে অনেক সুন্দর হবে এবং স্কিনে যে পোড়া দাগ থাকে আমাদের রোদে গেলে দেখা যে সানবার্ন হয়। সেটাও কিন্তু দূর করতে সাহায্য করে। রসুন খেতে পারেন। রসুনে যে উচ্চমাত্রার সালফার রয়েছে সেটাও কিন্তু আপনার স্কিনের জন্য অনেক ভালো। এক কোয়া কাঁচা রসুন সকাল বেলা খালি পেটে খেতে পারেন এতে কিন্তু আপনার স্কিনের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করবেন। সবশেষে বলব সঠিকভাবে খাবারগুলো খাবেন এবং একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন। কিভাবে আপনার স্কিন আরো সুন্দর করা যায় তার জন্য একজন ডাক্তার ভালো পরামর্শ আপনাকে অবশ্যই দিবে।

Powered by Blogger.